Redis – পর্ব ১

Redis কি?

redis-logoRedis হল  একটা ডাটা স্টোরেজ ইঞ্জিন। যেখানে ডাটার একটা নাম দেয়া থাকে। ডাটার নামকে বলে key এবং ডাটাকে বলা হয় value। কি-ভ্যালু ছাড়াও রেডিসে বেশ কয়েক ভাবে ডাটা রাখা যায়। তাই রেডিসকে অনেকে ডাটা স্টাকচার ইঞ্জিনও বলে থাকে।

কেন রেডিস

যদি আপনি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন এবং খুব বেশি লোড নিতে সক্ষম এমন একটা ওয়েব এপ্লিকেশন বানাতে চান তাহলে আপনার জন্য রেডিস।

  • রেডিস সব কিছু মেমরীতে নিয়ে কাজ করে
  • আমাদের প্রয়োজনীয় প্রায় সব ধরনের ডাটা স্ট্রাকচার সাপোর্ট করে
  • রেডিসকে অনেকগুলি স্লেভ সার্ভারে সেটাপ দেয়া যায়। মাস্টার-স্লেভ ক্লাস্টারিং করে।

Redis এর সুবিধা?

  • মারাত্মক দ্রুত। রেডিস প্রতি সেকেন্ড ১লক্ষ ১০ হাজার টি সেট( SET) এবং ৮১ হাজার গেট (GET) করতে পারে।
  • সব কাজ করে কম্পিটারের মেমরি(RAM) থেকে। হার্ড ডিস্ক ব্যাবহার করে শুধু ডাটা জমা রাখার কাজে।
  • প্রায় সব কাজই (atomic) এক স্থান থেকে একই সময়ে করা হয়। যার ফলে অনেকে এক সাথে কাজ করলেও সরার পরিবর্তন সবাই সাথে সাথেই পেয়ে যায়
  • রেডিসকে নানা ভাবে ব্যাবহার করা যায়। ক্যাশ হিসাবে, মেসেজিং কিউ আকারে, আবার স্বল্প সময়ের জন্য ডাটা জমা রাখার কাজে।

উবুন্টুতে রেডিস ইন্সটলেশন

$sudo apt-get update
$sudo apt-get install redis-server

তারপর নিচের কমান্ড লিখে রেডিস কনসোলে চলে যান
$redis-cli

যদি সব কিছু ঠিকঠাক থাকে তাহলে নিচের মন দেখাবে
redis 127.0.0.1:6379> 

আর আপনি ping লিখলে সে আপনাকে PONG উত্তর দিবে।

এই পর্ব এখানেই শেষ।


 

পরবর্তী পর্ব

Leave a Reply

%d bloggers like this: